Razik hasan

Published:
2021-10-13 20:24:01 BdST

শকুন ছানা দুপেয়ে মানুষের গোশত খেতে চেয়েছিল, মা শকুন যে ভাবে চালবাজি করে তা খাওয়ালো


লেখক

 


রাজিক হাসান
লন্ডন থেকে
_________________

কয়েকবছর আগে একটি গল্প পড়েছিলাম। লেখক ও গল্পের নাম মনে নেই, কিন্তু গল্পটি বেশ মনে আছে।

মা শকুন তার এক ছা নিয়ে বাস করতো শহরের সব চেয়ে উঁচু গাছটায়। গাছটি এতো উঁচু যে, মনে হয় যেন আকাশে ঠেকেছে তার ডালপালা। সেখান থেকে মা শকুন তার ছা কে শেখায় কী করে নখে ধার দিতে হয়; কী করে শিকারে নজর রাখতে হয়। আরও শেখাতো কীভাবে ভাগাড়ের ওপর দৃষ্টি রাখতে হয়; কী করে মৃত্যুর খবরে কান পাততে হয়। তারপর কীভাবে মৃতের শরীর থেকে ধারালো নখ দিয়ে মাংস খুবলে নিতে হয়।

ছানাটি খুব মনোযোগ দিয়ে দ্রুত মা শকুনের কাছ থেকে বেঁচে থাকার নানা কসরৎ শিখে নিল। কিন্তু শিখলে কি হবে; ছানাটিকে খাবারে অরুচি রোগে ধরল। কিছুই মুখে তার রোচে না। ভাগাড় থেকে নিয়ে আসা সদ্য মরা ভেড়ার ঠ্যাং; ছাগলের কলিজা; কুকুর ছানার শরীর; শুয়োরের মাথা কিছুতেই তার রুচি নেই। মা তো মহা চিন্তায় পড়ে গেল। তার একমাত্র ছানা না খেয়ে খেয়ে দিন দিন শুকিয়ে যাচ্ছে; কোন্ মায়ের সহ্য হয়?

মা শকুন বনে যায়। সেখান থেকে বাঘ, সিংহ, চিতার শিকার করা হরিণ; মহিষ; সজারু থেকে খুবলে খুবলে মাংস নিয়ে আসে একমাত্র ছা'কে খাওয়াবে বলে; কিন্তু তাতেও ছায়ের মুখের রুচি ফেরে না। মা শকুন তো মহাচিন্তায়; কী করে তার মানিকের রুচি ফিরিয়ে আনা যায়? তখন ছানাটি খুব করুণ স্বরে জানায়; মা, মা আমার দুপেয়ের মাংস চাই।

মা শকুন ছায়ের কথা শুনে চমকে তাকায়। ছানা নিচের দিকে তাকিয়ে মা কে দেখায়; ওই যে হাঁটছে, চলছে, নাচছে, গাইছে, খেলছে, ছুটছে, ওদের মাংস চাই। শুনে মায়ের মাথায় হাত। মানুষের মাংস পাবে কোথায়? শকুনের খাদ্য তো মরা শরীর হয়। সে এখন মরা শরীর পাবে কোথায়? মরা শরীরগুলোকে মানুষ হয় পুড়িয়ে, নয় মাটি চাপা দিয়ে নষ্ট করে ।

তবে হ্যাঁ, মনে আছে; ঠাকুমার কাছে শুনেছিল সে, সেই আকালের সময়ে, যেবার বন্যা হল; তারপর হল মহামারী, পথে ঘাটে ছড়িয়ে ছিল মরা মানুষের শরীর, সেই তখন হয়েছিল বটে একটা মোচ্ছব। ঈশ্বর কি তেমন দিন আর দেবেন? তাহলে উপায়? চোখের ওপর উপোসী ছানার মুখ মায়ের ঘুম কেড়ে নেয়। ভেবে ভেবে সে কুল পায়না।

তারপর হঠাৎ আকাশে বিদ্যুৎ ঝলকানোর মতো মা শকুনের মাথায় খেলে যায় বুদ্ধি। তাই তো, হাতের কাছে এমন সহজ উপায় থাকতে সে কিনা ভেবে মরছিল !!

যেমন ভাবা, তেমন কাজ। মা শকুন এক টুকরো গরুর মাংস থাবাতে লুকিয়ে চুপচাপ নিয়ে রেখে এল মন্দিরে, রেখে দিল চুপিসারে একেবারে ঠাকুরের মাথার উপর। তারপর এক টুকরো শুয়োরের মাংস চুপচাপ রেখে এল মসজিদের ভেতর।

পরদিন থেকেই মা শকুন, আর ছা শকুনের মুখে হাসি ফুটলো। শুরু হল মোচ্ছব।

আপনার মতামত দিন:


কলাম এর জনপ্রিয়