|

কলম্বাসের বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে


Published: 2017-01-01 13:33:41 BdST, Updated: 2017-08-20 11:56:26 BdST

 

মেজর ডা. খোশরোজ সামাদ
______________________________

কলম্বাসের আমেরিকা বিজয় ।
যে বাড়ির সামনে আমি দাঁড়িয়ে আছি সেটি কোন সাদামাটা বাড়ি নয়। কলম্বাসের বাড়ি। ক্রিষ্টোফার কলম্বাস। যিনি ৪০০ বছরের কিছু আগে আমেরিকা আবিস্কার করে পৃথিবীর সভ্যতার চাকাকে একাই অনেক দূরে এগিয়ে নিয়ে যান। সেদিনের সেই শিশু আমেরিকা আজ বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশ।

২।স্পেনের রানী ইসাবেলার অর্থায়নে কলম্বাস ভারতবর্ষ -এ সমুদ্র যাত্রার পরিকল্পনা করেন। বাতাস নির্ভর পালতোলা জাহাজে সমুদ্র যাত্রা অনেকটা প্রকৃতির খাম খেয়ালীপনার হাতে বন্দী ছিল। সনাতন কম্পাস, আকাশের তারা গুনবার উপর ভরসা করে কলম্বাসের জাহাজ মহাসমুদ্রে যাত্রা শুরু করে।পথে ভাইকিংস জলদস্যুদের নিষ্টুর আক্রমনের ভয় ছিল প্রতি ক্ষণে ক্ষণে।

৩।পথে সমুদ্র উত্তাল হলে অনেকেরই প্রচন্ড 'Sea Sickness ' দেখা দেয়। টাটকা খাবারের অভাবে স্কার্ভি রোগে অনেকের মৃত্যু হয়। কলম্বাস পথ হারিয়ে ফেলেন। দীর্ঘ, অনিশ্চিত সমুদ্র যাত্রায় প্রিয়জনকে না পাবার বেদনা আর নিরানন্দময় জীবনে অনেক নাবিক আত্মহননের পথ বেছে নেন। জাহাজীরা কলম্বাসকে দেশে ফিরে যেতে প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি করেন। অদম্য কলম্বাস অসীম ইচ্ছাশক্তিতে অটল থাকেন। কিছু সহযাত্রী তাকে হত্যার পরিকল্পনা করলে বিজ্ঞ কলম্বাস সেই ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দেন।


৪।হঠাৎ আকাশে পাখির দেখা পেলে সবাই উল্লসিত হয়ে উঠে। তার মানে নিকটেই ' স্থল'। নুতন দেশে পা রাখবার সময় সবাই ভাবছিল যে তারা ' ইন্ডিয়া' তে পৌছে গেছে। কিন্তু, আদিবাসীদের গাত্রবর্ণ লালচে হওয়ায় তাদের ভুল ভাঙে এবং তাদের নাম রাখা হয় রেড ইন্ডিয়ান '।এভাবেই কলম্বাস আমেরিকায় বিজয় পতাকা উড়ান।

৫। একদা ধন সম্পদের লোভে ইউরোপীয়রা বাংলা তথা ভারতবর্ষ - এ এসেছে। আজ জীবনের প্রয়োজনে বাঙালীরা সেই ইউরোপসহ সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পরেছে।

৬।পৃথিবীর বহু দেশ ঘুরে আমার এই প্রতীতি জন্ম লাভ করেছে যে বাঙালীরা বুদ্ধিমত্তা, মেধা, প্রজ্ঞায় যে কোন জাতির চেয়ে একবিন্দুও কম নয়। আগামী দিনের কোন বংগ সন্তান নুতন কোন জনপদ আবিষ্কার করে পৃথিবীর সভ্যতার মুকুটে নুতন পালক যুক্ত করবে আমি সেই আশায় দিন গুনি যে!

_____________________________

মেজর (ডাঃ ) খোশরোজ সামাদ
ওয়েস্টার্ন সাহারায় কর্মরত।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।