|

পোই য়ের দেশে-২ মহাচীন ভ্রমণ: "কুয়া খুড়ে পানি খাই"-


Published: 2016-11-29 12:10:10 BdST, Updated: 2017-08-20 11:54:21 BdST

 

 

ডা. নুরুল হাসান বাবু
___________________________


"কুয়া খুড়ে পানি খাই"- (শ্রমসাধ্য প্রাপ্তি ) এই বাগধারাটি আমারই আবিস্কার বলে দাবী করি আমি । কোন একদিন কঠিন শ্রমের বিনিময়ে প্রাপ্তি আর ভাগ্যের শূন্য ভূমিকা বোঝাতে বলে ফেলি তারপর ভাল লেগে যায় । কোন কিছুই আমার জীবনে সহজে পাওয়া নয় বোঝাতে এখন প্রায়শই বলি। আমার মত পুঁটি মাছের কোথাও Extra Privilege বা বাড়তি খাতির পাওয়ার কথাও না । তবে একমাত্র এয়ারপোর্টে এলে এর কিছুটা ব্যতিক্রম হয় দুই কারণে কয়েকটা যায়গায় - প্রথমত Amex এর সৌজন্যে এয়ারপোর্টে ঢোকা আর বাহির হতে এরাইভালের সময় সহযোগীতা করতে আমার নামের প্লাকার্ড হাতে দাড়িঁয়ে থাকা MG service , বিশ্বের প্রায় সকল এয়ারপোর্টে ফ্রী ভি. আই. পি লাউঞ্জ ব্যবহারের সুযোগ আর দ্বিতীয়ত সরকারী পাসপোর্ট এর কারনে বিশেষ সুবিধায় দেশে ও দেশের বাহিরে সহজ সন্মানীত Immigration, ক্ষেত্র বিশেষে ভিসা ফ্রি সুবিধা । সুবিধাটি অতি সাধারন -অনেকের কাছে নস্যি; তবে কঠিন বিড়ম্বনার জায়গা এয়ারপোর্টে এমন extra privilege অনেকটা স্বস্তির তাই প্রসঙ্গে আনলাম। যারা চান অন্তত এক সুবিধায় যোগ হতে পারেন অনায়াসেই......।

 

নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই MG টীম দ্রুত এয়ারপোর্ট রিপোর্টিং , luggage drop ও boarding pass করে দিল ।নীল পাসপোর্ট দেখে Immigration officer কোন প্রশ্ন না করেই সন্মানের সাথে Departure সীল বসিয়ে দিল boarding pass আর পাসপোর্টে। কিছুটা সময় Amex lounge এ কাটালাম ..সেখানে হাল্কা Lunch করে বার্ষিক ফীর কিছুটা উসুল করলাম।

চায়না ইষ্টার্ন এয়ারওয়েজের MU -3236 flight দুপুর ২টা ১০ মিনিটে উড়াল দিল কুনমিং এর পথে -গন্তব্য কুনমিং চ্যাংসুই ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট ।

ঢাকা-কুনমিং উড়াল দুরত্ব প্রায় ১২৬০ কিমি। চট্রগ্রাম - মিয়ানমার বিশ্বরোড যুক্ত হলে সড়কপথেই কুনমিং যাওয়া যাবে , সড়ক দুরত্ব হবে প্রায় ২৪০০ কিমি। মায়ানমার-কুনমিং যুক্ত হয়ে আছে - হয়ত আমরাও একদিন এই পথে যুক্ত হবো ,তবে পরবর্তি প্রজন্মের কজনার এত ধৈয্য থাকবে যে ২৪ ঘন্টা বা ততোধিক সময় দিয়ে এই পথ পাড়ি দেবার- এখন হলে হয়ত অনেকেই এই কষ্টটা করতে রাজী থাকত । যাক ২৫০০০ ফুট উচ্চতায় ঘন্টায় প্রায় ৬০০ কিমি বেগে বিমান ছুটতে থাকল ২ ঘন্টা ১০ মিনিটে কুনমিং চ্যাংসুই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পৌঁছানোর জন্য।

চীন বাংলাদেশের পূর্বে এবং সময়ে আমাদের থেকে ২ ঘন্টা এগিয়ে । চ্যাংসুই নামতে নামতে সেখানে সন্ধ্যা ৬.২০ বেজে যাবে । হাত ঘড়িটা চায়না সময় মিলিয়ে দুঘন্টা এগিয়ে নিলাম ..মেয়েকে বললাম তারও ঘড়ির সময় মেলাতে...মেয়ের মা ঘড়ি পড়েন না ,সূর্য্য আর ছায়া দেখে তিনি সময় নির্ধারণ করেন ! ইদানীং নিকটতম প্রতিবেশী প্রফেসর বাবলু দা ও প্রফেসর তাপসদার বাসার অষ্ট প্রহরের শঙ্খ আর ঘন্টার উলুধ্বনি তার জীবনে ডিজিটাল ওয়াচের সুযোগ এনে দিয়েছে। সময় মেলাতে মেলাতে মেয়ে বলে বসল " বাবা তোমার জীবন থেকে তো ২ ঘন্টা হারিয়ে গেল , আফসোস কোরো না বাবা তোমার সময় নষ্ট হয়নি আসার সময় আবার ২ ঘন্টা অগ্রীম ফিরে পাবে"..মেয়ের হিসাবের কথায় মনে মনে হাসলাম...ভালই সওদাগরের মেয়ে তুমি সময়ের লাভ-ক্ষতির হিসাবও জানো। কানে হেড ফোন লাগিয়ে ফ্লাইট চ্যানেলের গান শুনতে থাকলাম ; মাথার ঊপর ডিসপ্লেতে দেখাচ্ছে চট্রগ্রাম পার হয়ে মিয়ানমারের উপর বিমান heading to kunming , বিমানের উচ্চতায় বাহিরের তাপমাত্রা -৪০'C......।
_____________________________

 

 

লেখক ডা. নুরুল হাসান বাবু । শক্তিমান কথাশিল্পী। তার হাতে যাদু আছে। পেয়েছেন ব্যাপক পাঠকপ্রিয়তা। ডাক্তার প্রতিদিনেও নিয়মিত লিখছেন তিনি।
Clinical Ultrasound Consultant at Popular Diagnostic Centre Ltd.
Works at Bangladesh Govt.
Former Assistant Registrar at National Institute of Mental Health
Studied Bachelor of Medicine & Surgery (MBBS) at Rangpur Medical College

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।