|

টরেন্টো বন্ধুমেলা ১৯ শে নভেম্বর পরবাসী জীবনে কি আছে আমার


Published: 2016-11-11 20:18:20 BdST, Updated: 2017-11-24 13:14:40 BdST

 

টরেন্টো বন্ধুমেলা ১৯ শে নভেম্বর


ডা. তিতাস মাহমুদ

এই পরবাসী জীবনে কি আছে আমার? পিতা, মাতা, মামা ফুপু কেউ নেই। বারবার এক্সট্রা ঝোল নিয়ে আসা ক্যাফে রোজের জাহাংগীর নেই। ডিলাক্সের সিংগারা, মোজাম্মেল চত্বরে বেশী চিনি, বিনোদের চা নেই। রাত দু'টায় মনসুর ভাইয়ের দোকানে চাম্পা কলা, দুস বিস্কিট ... এসবের কিছুই আর নেই আমার। এই শুন্যতায় কেটে গেলো তেইশ বছর। যাপনের রীতিনীতি গেলো পাল্টে। কিন্তু বন্ধুত্ব থেমে আছে সেখানেই। বন্ধুত্ব স্হানু, এর বয়স বাড়েনা। শরীরে অনাবশ্যক চর্বি জমে, মাথার চুল উড়ে যায় ঝড়ে, সংসারে বাড়তি কিছু লোটা কম্বল হয়। কিন্তু একদিন হঠাৎ বন্ধু এলেই দুই চোখে দেখি সেই এনাটমীর রাগী ম্যাডামকে। অমাবস্যার অন্ধকারে দুই পাহাড়ের মাঝ দিয়ে ফিরে যাই হোস্টেলে। হাত উঁচিয়ে মিছিলের লম্বা সারি হই, থার্ড ইয়ারে হঠাৎ বিয়ে হয়ে যাওয়া মেয়েটির ভেজা চুল চোখে ভাসে। গন্ধ পাই বোমা বারুদে ঘর পোড়া অসহায় চাদর আর একটি বালিশের।

 

এইসব দেখবো বলেই তো ছুটে যাবার দিন গুনছি কানাডা যাবার দিনভর বন্ধু মেলায়। সানির( Shahryar Murshed) হাতের মুঠোয় সব। সুর ছন্দ বিনোদন সামলাবে নতুন ( Fahmida Nutan) আর সোহেল ( Ershad Ullah)। বাংলাদেশের দোঁআশ মাটি নিয়ে আসবে কবি মোশতাক (Mostaque Ahmed) তার সাথে অতি প্রিয় গানের কোকিল রীমা'পা ( Soheli Sattar Rima)। মুখরিত জীবনের আতিক ( Basher M Atiquzzaman) আসবে ফ্লোরিডা থেকে, সাথে আসছেন এহসান ভাই ( Ehsanul Karim) । ঘর পাহাড়া দিচ্ছে আমাদের রাজপথের সংগী যোসেফ ( Khandker Ahmedul Haque) আর বিশু (Biswajit Datta)। সদালাপী শ্রদ্ধেয় হীরক আর আমান ভাই, সব মিলিয়ে ১৫০ জনের ও বেশী বন্ধু! কে ঠেকাবে আমাকে? আমি ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুখের উপর দুই আঙুলে তুড়ি মেরে চলে যাবোই যাবো টরোন্টো।

 

## স্মৃতিবিজড়িত ক্যাফে রোজ এখন। সম্প্রতি সিএমসি ক্যাম্পাস ঘুরে আসা ছবি । ডাক্তার প্রতিদিন সম্পাদক ডা. সুলতানা অালগিনের ছবি তুলেছেন আহির ফা হিয়ান বুবকা। 

 

স্মৃতির লেডিস হোস্টেল এখন। ছবি আহির ফা হিয়ান বুবকা

 

 

সিএমসি এখন

 

সিএমসি ইন্টার্নি ডাক্তার হোস্টেল এখন

 

স্ট্রোকে প্যারালাইজড হয়ে, সেখানে মেয়ের শুশ্রষায় আছেন শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ইএনটির প্রফেসর মোহাম্মদ হোসেন। তিনিও আসবেন বন্ধুদের এই মিলন মেলায়। ক্যাম্পাসে তাঁকে দেখলেই দৌঁড়ে পালিয়ে যেতাম। এবার আমি ছুটে গিয়ে তাঁর পা ছুঁয়ে সালাম করবো, হুইল চেয়ারটি ঠেলে ঠেলে তাঁকে নিয়ে যাবো মন্চের একেবারে প্রথম সারিতে। এতে আমার আজীবনের ঋন, এতটুকু শোধ হবেনা জানি, তবু বিধাতার কাছে চাইবো বেঁচে থাকুক আমাদের সব শিক্ষকেরা। বেঁচে থাকুক আমাদের ভ্রাতৃত্ব, বন্ধুত্ব! দীঘজীবি হোক আমাদের আলমামেটার, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ।

 

 

লেখক : প্রবাসী চিকিৎসক। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ,সিএমসি ২৮ ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।