Ameen Qudir

Published:
2018-06-28 04:41:18 BdST

১৯ বছর বয়সী সেই ভাষাসৈনিক: এক আলোর পথযাত্রীর গল্প


 


মেজর ডা. খোশরোজ সামাদ

__________________________

কামাল লোহানী। রত্নপ্রসবিনী বাংলার এক সূর্যসন্তান।ভাষা আন্দোলনের সৈনিক হিসেবে মাত্র ১৯ বছর বয়সে কারারুদ্ধ হন। পরবর্তী জীবনে রাজপথই হয় তাঁর ঠিকানা।বিভিন্ন সময়ে কারাবন্দী হন। বঙ্গবন্ধু ,তাজউদ্দীনের মত বিশাল মহীরুহদের ছায়ায় স্নিগ্ধ-শানিত হয়ে উঠেন ।

২।ষাটের দশক। রবীন্দ্র জন্ম শতবার্ষিকী বন্ধ করবার জন্য আয়ুবশাহীর দমন নিপীড়ন মাথায় নিয়ে হাজারো সংস্কৃতি কর্মীকে সংগঠিত করেন।সেই বাষোট্টিতে 'ছায়ানট'এর সাধারণ সম্পাদকের গুরু দায়িত্ব পালন করেন।এই সংগঠনটি আজও দেশজ সংস্কৃতির পিলসুজ জ্বালিয়ে রেখেছে। পরবর্তীতে মুক্তচিন্তার প্রগতিকামী সাংস্কৃতিক কর্মীদের ' ক্রান্তি' র ছায়ায় একীভূত করেন।

৩।মহান মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলিতে সবাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সংবাদ শাখার স্পর্শককাতর দায়িত্ব বিচক্ষণতার সাথে এগিয়ে নিয়ে যান।

৪।মুক্তিযুদ্ধ উত্তরকালে দিনবদলের সংগ্রামের লড়াকুদের সামনের সারিতে উচ্চকিত কন্ঠে তাঁকে দেখা যায়। উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর হাল ধরেন।শিল্পকলা একাডেমীর মহাপরিচালক হিসেবে বহুমাত্রিক কর্মযজ্ঞ পরিচালনা করেন।

৫।সোভিয়েত ইউনিয়নের ভাংগনের পর বামপন্থিরা বিভ্রান্তির বেড়াজালে আটকে গেলেও ৮৫ বছরের এই তরুণ আজও শ্রেণীহীন সমাজের স্বপ্ন দেখেন,স্বপ্ন দেখান। তাঁর জন্মদিনের মাহেন্দ্রক্ষণে এই আলোর পথযাত্রীর আরো দিগন্ত বিস্তৃত পথচলা কামনা করি।

____________________________

আলোকপ্রভ কামাল লোহানীর সঙ্গে লেখক
মেজর ডা. খোশরোজ সামাদ।
আর্মড ফোরসেস ফুড এন্ড ড্রাগ ল্যাবরেটরির উপ অধিনায়কের দায়িত্ব ভার গ্রহণ করেছেন।

এর আগে ছিলেন আর্মড ফোরসেস মেডিকেল কলেজএ ।
ওয়েস্টার্ন সাহারায় শান্তিরক্ষী হিসেবে সফলভাবে এক বছরের কাজ শেষে আর্মড ফোরসেস মেডিকেল কলেজে সহকারী অধ্যাপক, ফার্মাকোলজি বিভাগে যোগ দিয়েছিলেন।


প্রিয় মুখ এর জনপ্রিয়