Ameen Qudir

Published:
2018-02-20 16:31:56 BdST

বেশ কিছু মেডিকেলের শিক্ষামান এত নিচু যে, সেখানকার ডাক্তারদের যোগ্যতা নিয়ে সন্দেহ আছে:টিএ চৌধুরী


 

 

 


ডাক্তার প্রতিদিন
__________________________

বাংলাদেশের চিকিৎসক সমাজের বিবেক অধ্যাপক ডা. টিএ চৌধুরী বলেছেন,
আপাতত আর নতুন মেডিকেল কলেজের দরকার নেই। বেশ কিছু মেডিকেল কলেজের শিক্ষার মান এতটাই নিচু যে, সেখান থেকে পাশ করা ডাক্তারদের যোগ্যতা নিয়ে আমাদের নিজেদের মনেই সন্দেহের উদ্রেক হচ্ছে।


আপাতত নতুন নতুন মেডিকেল কলেজ আর চালু না করে যেগুলি আছে, সেগুলিকে মানসম্মত করা উচিত।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত তৃতীয় সমাবর্তনে তিনি এই বিবেক জাগরণের আহবান জানান।
দেশ জাতি ও চিকিৎসক সমাজের জন্য দিকনির্দেশনামূলক
সমাবর্তন বক্তৃতায় তিনি বলেন ,
আমি কোন বড় ধরণের বুদ্ধিজীবী নই। তাই আমার পূর্বসূরীদের মত আমার বক্তব্যে আধ্যাত্মিকতা ও দার্শনিক চিন্তাধারা খুব একটা থাকবে না। গত অর্ধশতাব্ধীর বেশী সময় ধরে বেশ কাছে থেকে যে পরিবর্তনগুলো আমার দেখার সুযোগ হয়েছে; সেই অভিজ্ঞতার আলোকে কিছু বক্তব্য রাখতে চাই।

অধ্যাপক টিএ চৌধুরী বলেন,

দেশে চিকিৎসা সেবার অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে, সে সম্পর্কে আমরা সবাই একমত। আমাদের মাতৃমৃত্যুর হার অনেক কমেছে। শিশু ও গর্ভবতী মায়েদের প্রায় সবাই টিকা পান। অনেক সংক্রামক ব্যাধি সম্পূর্ণ নির্মূল হয়ে গেছে। স্বাস্থ্য খাতে এই উন্নতি অামাদের অঞ্চলের অন্য অনেক দেশের ঈর্ষার কারণ।

কিভাবে এটা সম্ভব হল। মাঠ পর্যায়ে কাজগুলি করেছে অামাদের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।

সেটা সম্ভব হয়েছে গত ২/৩ দশকে আমাদের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীর সংখ্যা অনেক বাড়ার ফলে।

অধ্যাপক টিএ চৌধুরী বলেন
মানুষের দোরগোড়ায় সেবা পৌছানোর জন্য নিসন্দেহে আমাদের আরও অনেক চিকিৎসক প্রয়োজন।


তবে আমি বিশ্বাস করি, দ্রুত চিকিৎসক ও অন্য স্বাস্থ্যকর্মীর সংখ্যা বাড়ানোর জন্য যাতে এদের গুনগত মান ক্ষুন্ন না হয়, সেদিকে সজাগ নজর রাখতে হবে।

অধ্যাপক টিএ চৌধুরী বলেন,

সময় একটু বেশী লাগলেও আমরা চাই দেশে কেবল মাত্র এমন চিকিৎসক তৈরী হোক, যারা যে কোন মাপকাঠিতেই অন্যান্য দেশের চিকিৎসকের চাইতে নিম্ন মানের হবে না।

অধ্যাপক টিএ চৌধুরী বলেন,

দেশে গত কয়েক দশকে সরকারি বেসরকারি অনেক মেডিকেল কলেজ হয়েছে। কিন্তু দু:খের বিষয় সেগুলির অনেকগুলিই মুনাফাভিত্তিক , যাদের প্রধান উদ্দেশ্য হল , এই মেডিকেল কলেজ করে টাকা পয়সা করা। সমাজের উন্নতি করা নয়।

অনেক মেডিকেল কলেজে সত্যিকারে চিকিৎসা বিজ্ঞান শিক্ষা দেওয়ার প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নাই। শিক্ষক নাই। রোগী নাই। অথচ পাশের হার ৮০-৯০ শতাংশ।

দেশের বেশ কিছু মেধাবী ছাত্রছাত্রীকে মেডিকেল শিক্ষা দেওয়ার নাম করে যদি আমরা নিম্নমানের চিকিৎসক তৈরী করি; এটা কি ঠিক হবে।

প্রশ্ন উঠতে পারে, এই সমস্ত মেডিকেল থেকেও শেষ পর্যন্ত ভাল বিশেষজ্ঞ ডাক্তার বের হয়েছে। সেটা সম্ভব হয়েছে ব্যাক্তিবিশেষের নিজস্ব চেষ্টায়।
অধ্যাপক টিএ চৌধুরী বলেন,
বেশ কিছু মেডিকেল কলেজের শিক্ষার মান এতটাই নিচু যে, সেখান থেকে পাশ করা ডাক্তারদের যোগ্যতা নিয়ে আমাদের নিজেদের মনেই সন্দেহের উদ্রেক হচ্ছে।

আপাতত নতুন নতুন মেডিকেল কলেজ আর চালু না করে যেগুলি আছে, সেগুলিকে মানসম্মত করা উচিত। আমার মতে, দেশে এখন যে শতাধিক মেডিকেল কলেজ আছে, তা আমাদের চিকিৎসকের প্রয়োজন আপাতত মেটাতে সক্ষম।


প্রিয় মুখ এর জনপ্রিয়