|

রোগী কথনমুলারিয়ান এজেনেসিসঃ প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না


Published: 2017-10-12 15:28:24 BdST, Updated: 2017-11-22 09:55:38 BdST

 

 

 


ডা. ছাবিকুন নাহার
_____________________________________


প্রমিতি। বয়স ১৬। এইচএসসি ১ম বর্ষে পড়ে। প্রাণবন্ত, উচ্ছ্বল প্রজাপতির মতো। যখন কথা বলে, মনেহয় কোথাও ঝিরঝিরে হাওয়া বইছে। ভালোগে।

বান্ধবীরা যখন মাসের নির্দিষ্ট কিছু দিন নিয়ে আকারে ইঙ্গিতে কথা বলে তখন ওর খটকা লাগে। বুঝতে পারে না। কই ওর তো এমন কিছু হয় না! তবে সে কি ভিন্নতর? কিন্তু তার সবকিছুই তো অন্য মেয়েদের মতো। শারীরিক গঠন তো অদ্ভূত সুন্দর। নিজেরই নজর লেগে যায় অবস্থা। কেউ কেউ 'মিস কলেজ' বলে, শুনেছে সে। কিন্তু ঐ ব্যাপারটা শুধু তার মধ্যে নেই।

- কেন?

কাকে জিজ্ঞেস করবে ভেবে পায় না। এই সেদিন মা জিজ্ঞেস করেছিল,

- কিরে প্রমি তোর পিরিয়ড কি সত্যি হয় না, নাকি মাকে লুকাস?
- মা, কী যে বলো! যাও তো!

মা অবশ্য সামনে থেকে চলে গিয়েছিল, কিন্তু মাকে যে খুব চিন্তিত দেখাচ্ছিল! তবে কি তার আসলেই সমস্যা?

প্রমিতি তার মায়ের সঙ্গে আমার কাছে এসেছে।
চোখে মুখে অজানা আশংকার ছায়া। প্রথমেই আশ্বস্ত করলাম। সহানুভূতি নিয়ে সবটুকু শুনলাম। খুব শান্ত স্বরে আদ্র কন্ঠে বল্লাম,

আহারে মেয়ে তোমার তো মাসিক হবে না কখনো...

চোখের সামনে মা মেয়েকে রক্তহীন ফ্যাকাশে বিবর্ণ হয়ে যেতে দেখলাম। হাতটি ধরে বসালাম। ভরসা দিয়ে বল্লাম, শুনুন প্রমিতির কী হয়েছে।

পাঠক আপনারাও শুনুন-

প্রমিতির জরায়ু জন্মগত ভাবে তৈরী হয়নি। হ্যাঁ ঠিক শুনছেন। একে ডাক্তারি ভাষায় বলে মুলারিয়ান এজেনেসিস। আর যেহেতু জরায়ু নেই তাই মাসিক বা পিরিয়ড ও নেই! এই মাসিক না হওয়া কে বলে প্রাইমারী এমেনুরিয়ায়। এতে মেয়দের কখনো মাসিক হয় না। এমনকি বাচ্চাকাচ্চা ও হয় না।

আহারে মেয়ে, তুমি জানো না, প্রকৃতির কী এক অবিবেচক খেয়ালের শিকার তুমি!

প্রথমে মা, মেয়ে কেউই বিশ্বাস করতে পারেনি। অবশ্য বিশ্বাস করার কথা ও না। তারপর আলট্রাসাউন্ড করে দেখা গেল আসলেই জরায়ু নেই। তখন আর প্রমিতির চোখের দিকে তাকাতে পারি না। আমি না তাকিয়েও বলতে পারি, ওর ছলছল চোখ জিজ্ঞাসু দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে। জানতে চাইছে, আমার সাথেই কেন এমন হলো ম্যাম???

প্রমিতির সাথে সাথে আপনারাও যদি জানতে চান, তাহলে পরের পর্বে এর কারণ, চিকিৎসা প্রনালী এবং ফিউচার প্লান নিয়ে কথা বলতে পারি। আজ এ পর্যন্তই....

________________________________

ডা. ছাবিকুন নাহার
মেডিকেল অফিসার
ঢাকা মেডিকেল কলেজ

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।