Ameen Qudir

Published:
2019-02-10 10:19:01 BdST

স্বাস্থ্য ক্যাডারের পদক্রম ও জনবল বিন্যাস যুগোপযোগী করা এখন সময়ের দাবী




ডা. কামরুল হাসান সোহেল
____________________________

স্বাস্থ্য ক্যাডারের পদক্রম ও জনবল বিন্যাসে ব্যাপক ত্রুটি বিচ্যুতি আছে। কে বা কারা এই পদক্রম ও জনবল বিন্যাসের সাথে জড়িত ছিল? স্বাস্থ্য ক্যাডারের পদক্রম ও জনবল বিন্যাস করে যুগোপযোগী করা এখন সময়ের দাবী।

*৩১ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোন ইএমও পোস্ট নেই কিন্তু সেখানে ২৪ ঘন্টা জরুরী বিভাগে সেবা দিতে হচ্ছে। যেখানে ইএমও নেই সেখানে এই সেবা কে দিবে? যদি দিতেই হয় তাহলে কেন ইএমও পোস্ট নেই, সেই পদ সৃজন করে কেন ইএমও পদে ডাক্তার নিয়োগ দেয়া হচ্ছেনা?

*৩১ শয্যাবিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মাত্র দুই জন মেডিকেল অফিসারের পদ আছে, মাত্র দুই জন মেডিকেল অফিসার দিয়ে আউটডোর, ইমার্জেন্সি ও ইনডোর সেবা সচল রাখা সম্ভব? ২৪ ঘন্টা সপ্তাহের ৭ দিন,মাসের ৩০ দিনই?

* জুনিয়র কন্সালটেন্ট(মেডিসিন,সার্জারী,গাইনি, শিশু, এনেস্থিসিয়া) পদ আছে,কিন্তু তারা তো মেডিকেল অফিসার আউটডোরে রোগী দেখে যাদের রেফার করবে তাদের দেখবে। আউটডোরে প্রতিদিন প্রায় ১৫০-২০০ জন রোগী আসে। এত রোগীকে কি দেখা সম্ভব দুইজন মেডিকেল অফিসারের পক্ষে?

* সহকারী সার্জনের পদ আছে তাদের পোস্টিং ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে,তাদের দিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেবা কার্যক্রম চালিয়ে নেয়া হয় কিন্ত তাতে করে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রগুলো হয়ে পরে ডাক্তার শুন্য।

* ইউ এইচ এফ পি ও কে প্রশাসনিক কাজে ব্যস্ত থাকতে হয়, বিভিন্ন সভা-সমাবেশে ব্যস্ত থাকতে হয়, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র, কমিউনিটি ক্লিনিক ভিজিট করতে হয়।

* আর এম ও কে উপজেলা হাসপাতালের সার্বিক ব্যবস্থাপনা বিষয়ে সার্বক্ষণিক তদারকি করতে হয়।

* এই জনবলের বিন্যাস জরুরি কেননা এত অপ্রতুল জনবল দিয়ে উপজেলার জনগণকে মানসম্মত চিকিৎসা সেবা দেয়া সম্ভব নয়।

* ৩১ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কমপক্ষে ৫ জন ইএমও, ৫ জন মেডিকেল অফিসার পদ সৃজন করে সেই পদগুলোতে ডাক্তার পদায়ন করা উচিৎ অথবা ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে স্বাস্থ্য ক্যাডার থেকে ডাক্তার পদায়ন না করে, তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পদায়ন করা যেতে পারে। ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের অধীন ডাক্তার নিয়োগ দেয়া যেতে পারে।

* আর এম ও পদ হওয়া উচিৎ প্রমোশন পোস্ট, ষষ্ঠ গ্রেডের পোস্ট। আরএমও কে সার্বক্ষণিক হাসপাতালের সব ব্যাপারে তদারকি করতে হয়,জবাবদিহি করতে হয়। একজন মেডিকেল অফিসার নবম গ্রেডে বেতন-ভাতা পায়, একজন আরএমও ও নবম গ্রেডে বেতন-ভাতা পায়। কিন্তু আরএমও- দায়িত্ব অনেক বেশি এবং জবাবদিহিতা ও অনেক বেশি। কিন্তু অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনের জন্য কোন প্রকারের প্রণোদনা দেয়া হয়না, দায়িত্ব ভাতা দেয়া হয়না উল্টো বেতন থেকে পুরো বাড়ি ভাড়া কেটে নেয়া হয় আর পান থেকে চুন খসলেই সব দায় গিয়ে বর্তায় আরএমও- র কাঁধে। আরএমও-র পোস্টকে হয় প্রমোশন পোস্ট করা হোক নাহলে প্রণোদনা বা অতিরিক্ত দায়িত্ব ভাতা দেয়া হোক।

* ইউ এইচ এফ পি ও পোস্ট পঞ্চম গ্রেডের হওয়া উচিৎ। উপজেলার নিয়ন্ত্রণকারী কর্মকর্তা তিনি তার অধীনেই থাকেন জুনিয়র কনসালটেন্ট,আরএমও, মেডিকেল অফিসার সহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। জুনিয়র কনসালটেন্ট আর ইউ এইচ এফ পি ও দুইজনই ষষ্ঠ গ্রেডের কর্মকর্তা হওয়ায় নিয়ন্ত্রণকারী কর্মকর্তা হিসেবে তাকে প্রায়শই কিছু বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়। আরএমও পদে দুই-আড়াই বছর চাকরি করার পর কাউকে ইউ এইচ এফ পি ও পোস্টে পদায়ন করা হলে আমরা উপজেলা পর্যায়ে আরো দক্ষ প্রশাসক পাবো।

* একইভাবে পরবর্তী উর্ধতন কর্মকর্তাদের পদক্রম এক ধাপ করে বাড়িয়ে দেয়া উচিৎ। যেমনঃ সিভিল সার্জন চতুর্থ গ্রেডের কর্মকর্তা, উপপরিচালক তৃতীয় গ্রেড, পরিচালক দ্বিতীয় গ্রেড, অতিরিক্ত মহাপরিচালক প্রথম গ্রেড,মহাপরিচালক সিনিয়র সচিব সমতুল্য পদক্রম হওয়া উচিৎ।
_______________________

ডা. কামরুল হাসান সোহেল :
আজীবন সদস্য, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ , কুমিল্লা জেলা।
কার্যকরী সদস্য স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ
আজীবন সদস্য,বিএমএ কুমিল্লা।
সেন্ট্রাল কাউন্সিলর, বিএমএ কুমিল্লা


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়