Ameen Qudir

Published:
2019-01-09 11:49:32 BdST

প্রত্যাশা নতুন স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে চিকিৎসকদের ২০ দফা




ডা. কামরুল হাসান সোহেল
_______________________________

 

নতুন স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে চিকিৎসক সমাজের যা প্রত্যাশাঃ

(১) জেলায় জেলায় নিত্য নতুন মেডিকেল কলেজ খোলার অনুমোদন না দেয়া।

(২) এখন পর্যন্ত অনুমোদন প্রাপ্ত সকল সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করা। যেসমস্ত মেডিকেল কলেজ মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে পারছেনা তাদের মানোন্নয়নের জন্য একটা ডেডলাইন দেয়া।তারপরও যদি তারা মানোন্নয়নে ব্যর্থ হয় তবে সেসব মেডিকেল কলেজ বন্ধ করে দেয়া।

(৩) মেডিকেল কলেজে শিক্ষক সংকট দূর করা বিশেষ করে নতুন নতুন সরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে শিক্ষক সংকট।প্রি-ক্লিনিক্যাল সাবজেক্টে সিকট বেশি,শিক্ষক সংকট দূর করতে কার্যকর উদ্যোগ নেয়া।

(৪) বিভাগীয় শহরগুলোতে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা।

(৫) মেডিকেল শিক্ষাকে যুগোপযোগী করা এবং উচ্চশিক্ষায় আসন সংখ্যা বৃদ্ধি করে আরো বেশি বেশি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক তৈরির সুযোগ সৃষ্টি করা।

(৬) পুরনো সরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে নতুন নতুন বিষয়ে উচ্চশিক্ষার ব্যবস্থা করা।

(৭) ২৫০ শয্যার মেডিকেল কলেজগুলোকে ৫০০ শয্যায়, ৫০০ শয্যার মেডিকেল কলেজগুলোকে ৭৫০/১০০০ শয্যায় উন্নীত করা।

(৮) পুরনো মানসম্পন্ন বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে অনারারি ট্রেনিং নেয়ার সুযোগ করে দেয়া।

(৯) অনারারিদের মাসিক ভাতা দেয়ার ব্যবস্থা করা।

(১০) বিভাগগুলোতে বিশেষায়িত হাসপাতাল স্থাপন করা। বিশেষায়িত হৃদরোগ ইনস্টিটিউট, কিডনি ইনস্টিটিউট, লিভার ডিজিজ ইনস্টিটিউট, ডায়াবেটিস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউট, ক্যান্সার ইন্সটিটিউট, আই সি ইউ, সি সি ইউ,কিডনী ডায়ালাইসিস সেন্টার। এক কথায় বিশেষায়িত চিকিৎসা সেবা শুধু ঢাকা কেন্দ্রিক না রেখে সব বিভাগীয় শহরে তা ছড়িয়ে দেয়া।

(১১) ১০০ শয্যার জেলা সদর হাসপাতালগুলোকে ১৫০/২০০ শয্যায় উন্নীত করা।জেলা সদর হাসপাতালে নিউরোলজিস্ট, নিউরোসার্জন, কার্ডিওলজিস্ট নিয়োগ দেয়া। সব ধরণের ওটি করার সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা।

(১২)উপজেলা হাসপাতালগুলোতে পর্যাপ্ত চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া। কখনো যেন ফাঁকা না হয়ে যায় সেইজন্য প্রতিবছর বিসিএসে ১৫০০/২০০০ জন চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া। পর্যাপ্ত জনবল নিশ্চিত করা,বিশেষ করে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারীর সংকট খুবই তীব্র।

(১৩) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের জন্য মানসম্মত আবাসনের ব্যবস্থা করা,গ্যাস,বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা।

(১৪) কর্মস্থলে চিকিৎসকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

(১৫) চিকিৎসকদের জন্য আলাদা বেতন কাঠামো নির্ধারণ করা,কেননা চিকিৎসকরা ২৪ ঘন্টা সেবা দেয়,বছরের ৩৬৫ দিনই সেবা দেয়।চিকিৎসকদের নির্দিষ্ট কোন কর্মঘণ্টা নেই, কিন্তু অতিরিক্ত ডিউটির জন্য অতিরিক্ত বেতন,ভাতা নেই।তাই চিকিৎসকদের বেতন কাঠামো হওয়া উচিত আলাদা।

(১৬) স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতি বন্ধ করার বাস্তবিক উদ্যোগ নিতে হবে। বিশেষ করে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বা পুরনো জেলা সদর হাসপাতালে সিটিস্ক্যান,এম আর আই মেশিন সহ নানা যন্ত্রপাতি (যা লাগবে তা ও, যা লাগবেনা তা ও নিতে বাধ্য করার সাথে জড়িত যে কোম্পানি) সাপ্লাইয়ের কাজে যে দুর্নীতি হয় তা বন্ধ করতে হবে। ডিজি হেলথে দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে। বিভিন্ন কাজে ঘুষের লেনদেন বন্ধ করতে হবে,বদলি বাণিজ্য বন্ধ করতে হবে।

(১৭) আন্তঃ ক্যাডার বৈষম্য দূর করতে হবে।অন্যান্য ক্যাডারের সাথে সামঞ্জস্য রেখে পদোন্নতি প্রক্রিয়া আরো সহজ ও দ্রুততর করতে হবে।

(১৮) কৃত্য পেশাভিত্তিক মন্ত্রণালয় চাই আমরা।

(১৯) বিএমডিসিকে শক্তিশালীকরণ। ভুয়া চিকিৎসকরা যেন সনদ না পেতে পারে সেজন্য বিএমডিসি থেকে ভুত তাড়াতে হবে। দেশজুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ভুয়া চিকিৎসকদের আইনের আওতায় আনতে হবে।

(২০) রেফারেল সিস্টেম চালু এবং বাস্তবায়ন করতে হবে। হেলথ ইন্সুরেন্স চালু করার উদ্যোগ নিতে হবে।

আমাদের দাবীগুলো কি অযৌক্তিক? আমরা কি খুব বেশি কিছু দাবী করেছি? মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আমাদের এই দাবীগুলো পূরণ করেন প্লিজ।
______________________________

 

ডা. কামরুল হাসান সোহেল :
আজীবন সদস্য, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ , কুমিল্লা জেলা।
কার্যকরী সদস্য স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ
আজীবন সদস্য,বিএমএ কুমিল্লা।
সেন্ট্রাল কাউন্সিলর, বিএমএ কুমিল্লা


মেডিক্যাল ক্যাম্প এর জনপ্রিয়