Ameen Qudir

Published:
2018-05-24 04:21:26 BdST

দুর্নীতির লাগাম টানতে কঠোর ভূমিকায় বিশ্বের জনপ্রিয়তম ডাক্তার প্রধানমন্ত্রী



ডেস্ক__________________


সবাই বেতন বাড়ায়। ফোনভাতা; গাড়িভাতা, বাবুর্চিভাতা কত কিছু বাগিয়ে নেয়। কিন্তু বিশ্বের জনপ্রিয় ডাক্তার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ ঠিক উল্টো পথে হাঁটলেন। দুর্নীতির রাস্তা থেকে মালয়েশিয়াকে টেনে নামাতে তিনি ফালতু সব সুযোগ ছাটাই করতে উদ্যোগী হলেন।
মন্ত্রীদের বেতন-ভাতা ১০ শতাংশ কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি । ইতিমধ্যেই এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব পাস করেছে দেশটির মন্ত্রিসভা। বুধবার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।

খবরে বলা হয়, মালেশিয়ায় অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলার জন্য মন্ত্রীদের বেতনভাতা কমানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ।

এতে দেশের অর্থনৈতিক দুরবস্থা নিয়ে আলোচনা করা হয়। বর্তমানে মালয়েশিয়ার মোট ঋণের পরিমাণ ৩৩৮.৩ বিলিয়ন ডলার। অর্থনীতি আরো সমৃদ্ধ করার জন্য মন্ত্রীরা সরকারের ব্যয় কমানোর পক্ষে মত দেন।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রীদের বেতন ১০ শতাংশ কমানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৈঠক শেষে মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, আমরা দেশের অর্থনৈতিক সংকটের বিষয়ে উদ্বিগ্ন। এজন্য মন্ত্রীদের বেতন ১০ শতাংশ কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

তিনি বলেন, আমাদের মোট ঋণ ১ ট্রিলিয়ন রিঙ্গিত (৩৩৮.৩ বিলিয়ন ডলার)। আমরা এই ঋণ কমানোর উপায় খুঁজছি। এই ঋণের পরিমাণ ছোট করার চেষ্টা করছি।

আগের মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী থাকা অবস্থায়ও মন্ত্রীদের বেতন কমিয়েছিলেন মাহাথির। সে বিষয়ে তিনি বলেন, ১৯৮১ সালে যখন আমি প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত হয়েছিলাম, প্রথমেই মন্ত্রী ও জ্যেষ্ঠ সরকারি কর্মকর্তাদের বেতনভাতা কমিয়ে দিয়েছিলাম।

তবে এবার সরকারি কর্মকর্তাদের বেতন কমানো হবে কি না সে বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে মাহাথির বলেন, আমরা দেখেছি, জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের বেতন মন্ত্রীদের চেয়েও বেশি। এখন তারা সরকারের খরচ কমিয়ে দেশ পরিচালনায় সহায়তা করবে কি না, এটা তাদের ব্যাপার।

উল্লেখ্য, মালেশিয়ার পার্লামেন্টের ওয়েবসাইটে দেয়া তথ্য অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী ২২ হাজার ৮২৭ রিঙ্গিত, উপপ্রধানমন্ত্রী ১৮ হাজার ১৬৮ রিঙ্গিত, মন্ত্রী ১৪ হাজার ৯০৭ রিঙ্গিত ও প্রতিমন্ত্রী ১০ হাজার ৮৪৮ রিঙ্গিত বেতনভাতা পান।


মানুষের জন্য এর জনপ্রিয়