Ameen Qudir

Published:
2018-02-20 08:46:04 BdST

কোটা ৫৬ আর মেধা ৪৪ ভাগ!৫টি বিসিএসে কোটার ৩৫০০ পদ শূণ্য যোগ্য প্রার্থী না মেলায়


 


ডা. কামরুল হাসান সোহেল
____________________________


কোটা প্রথা সরকারি চাকরি প্রার্থী মেধাবীদের জন্য গলার ফাসে পরিণত হয়েছে। সময় এসেছে কোটা প্রথা সংস্কারের।
সরকারি চাকরি সোনার হরিণ, ৩৮ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে প্রায় পৌনে ৪ লাখ চাকরি প্রার্থী, কিন্তু যে চাকরি পাওয়ার জন্য যারা দিন রাত এক করে ফেলেছে তারা হয়তো অনেক বেশি নাম্বার পেয়েও কোটাধারীদের কাছে হেরে যাবে। শুধুমাত্র কোটার জোরে চাকরি পেয়ে যাবে একজন অপেক্ষাকৃত কম যোগ্যতাসম্পন্ন, কম মেধাবী কেউ? এই কোটা প্রথার জন্যই আজ দেশের সব গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে দিন দিন মেধাবীদের সংখ্যা কমে যাচ্ছে, অপেক্ষাকৃত কম মেধাবীরা বিশেষ কোটায় চান্স প্রাপ্তরাই পালন করছেন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব।

কোটা ৫৬ ভাগ আর মেধা ৪৪ ভাগ!!! এইটা অন্যায়, মেধাবীদের বঞ্চিত করা হয় এই কোটা প্রথা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে। একজন সরকারি চাকরিপ্রার্থী চাকরি পাবেন তার মেধার ভিত্তিতে,চাকরি পাওয়ার জন্য কোটা কোন যোগ্যতার মাপকাঠি হতে পারেনা।
২৮, ২৯,৩০ ,৩১ ও ৩৫ তম বিসিএসে ডিবিসি টিভির তথ্য মতে কোটার বিপরীতে শূণ্য পদ ৩৫০০ জন। যোগ্য প্রার্থীই মেলে নি কোটায়।

সবচেয়ে বড় কথা কোটা সংরক্ষিত রাখায় কোটার বিপরীতে যোগ্য প্রার্থী না পাওয়ায় তা খালি থেকে যাচ্ছে,মেধার কি নিদারুণ অপচয়!!! এত এত পরিশ্রম করে,এতগুলো ধাপ পেরিয়েও কেউ চাকরি পেলনা সে কোন কোটা পাওয়ার যোগ্য নয় বলে কিন্তু তার চেয়ে অনেক কম নাম্বার পেয়েও একজন চাকরি পেয়ে যায় তার কোটার যোগ্যতায়? কোটার বিপরীতে কাউকে না পেলেও সেই পদগুলো খালি না রেখে তা যদি অপেক্ষমাণ মেধা তালিকা থেকে পুরণ করা হতো তাহলেও কিছুটা ন্যায় আচরণ করা হতো তাদের সাথে।

Image may contain: text

 

দেশের মাত্র ২.৬৩ শতাংশ জনগণের জন্য সংরক্ষিত ৩৬ ভাগ, নারী কোটা ১০ ভাগ, জেলা কোটা ১০ ভাগ, সর্বমোট ৫৬ ভাগ, বাকি ৪৪ ভাগের জন্য এক অসম প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হতে হয় চাকরিপ্রার্থীদের।এই কোটা প্রথার সংস্কার জরুরী, মেধার চেয়ে কোটা কোনভাবেই বেশি হওয়া উচিৎ না।

সরকারি চাকরিতে কোটা হওয়া উচিৎ ৩০ ভাগ,মেধায় ৭০ ভাগ নিয়োগ হওয়া উচিৎ
প্রতিবন্ধীর জন্য: ১ ভাগ
ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জন্য: ৪ ভাগ
মুক্তিযোদ্ধা/পোষ্যদের জন্য: ১০ ভাগ
নারীদের জন্য: ১০ ভাগ
জেলা কোটা : ৫ ভাগ

__________________________

Image may contain: 1 person, closeup

ডা. কামরুল হাসান সোহেল

আজীবন সদস্য, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ , কুমিল্লা জেলা।
কার্যকরী সদস্য স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ
আজীবন সদস্য,বিএমএ কুমিল্লা।
সেন্ট্রাল কাউন্সিলর, বিএমএ কুমিল্লা

 

 


মানুষের জন্য এর জনপ্রিয়