|

এই সালমা , সেই সালমা


Published: 2016-12-01 17:08:08 BdST, Updated: 2017-06-25 21:31:55 BdST

 

        


ডা. অঞ্জলি
___________________________

 

মনে পড়ে কি সেই সালমাকে। মিষ্টি মেয়ে সালমা। ঠিক যেন গ্রামের সেই কুঁড়েঘরের রাজকন্যা।

প্রায় ১০ বছর আগের কথা। বাবার হাত ধরে ঢাকায় এসেছিল এই রাজকন্যা । সেই দিল্লিশ্বরী সম্রাজ্ঞী নূরজাহানের মত। এসেছিল কুষ্টিয়ার অচেনা অদেখা গ্রাম থেকে। সাংবাদিকদের কাছে শুনেছি, নদীর ধারে টিন, বেড়া আর মাটি দিয়ে তৈরি দুটো ঘরের একটা জীর্ণ বাড়িতে ছিল সালমাদের বাস। অভাবী দু:খী নুন আনতে পানতা ফুরায় পরিবারে জন্ম। বাবা ছিল ক্ষুদ্র চাষী।

গানের অসামান্য দরদী গলা রাতারাতি সালমা কপাল বদলে দেয়। ফোক গানের কিশোরী রানী হিসেবে তার আবির্ভাব। ক্লোজ আপ ওয়ান
গানের প্রতিযোগিতার বিজয় তাকে রানীতে পরিনত করে।

 

         

কুড়েঘর ছেড়ে ঢাকায় আসে সে সপরিবারে।

২০১১ সালে সালমা দিনাজপুরের বর্তমানের এমপি শিবলী সাদিকের সঙ্গে তার বিয়ে হয়।

আবার কেটে গেল আধা দশক।

হঠাৎ ছন্দ পতন। স্বামীর ঘরে নেই গানের রানী। একটি কন্যা সন্তানের মা হয়েও আজ সে আবার আদাবরের বাপের বাড়িতে । ভেঙে গেছে রাজ সংসার। সালমা ও শিবলী বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন দুই পরিবারের সম্মতিতে।

মেয়ে স্নেহা এখন বাবার কাছে। ঠিক হয়েছে সপ্তাহের তিন দিন থাকবে বাবার কাছে, চার দিন থাকবে মায়ের কাছে।

 

 

         

কেন এমন হয়। কেন ভেঙে যায় এই সব অসম সংসার।
মনোবিদগন বলছেন, অর্থনৈতিক ভাবে অসম বিয়ে হয় ই। কিন্তু এরকম নানা সমস্যা থেকেই যায়।

বিশেষ করে বিত্তবান পরিবারের কোন সন্তান যখন অসম বিয়ে করে তার মধ্যে সাময়িক মোহ কাজ করতে পারে। সে মোহ স্থায়ী না হতেও পারে। তখন সঙ্কট দেখা দেয়।

বিত্তবানদের একটা প্রচলিত মোহ হচ্ছে, সিনেমা র নায়িকা, গায়িকাদের প্রতি। এটা অনেকের ফ্যাশন।

সেই ফ্যাশনের বলি হয় প্রতিভাবান শিল্পীরা।
সালমা সহ অনেকের ক্ষেত্রেই সেটা হয়েছে।মোহ ত্যাগের সময় নানা অপবাদ দেয়া হয়।

তাহলে সালমা বা সালমাদের করণীয় কি!

সেটা হল, নিজের ক্যারিয়ার প্রশ্নে আপোষ না করা। নিজের গান , প্রতিভাদীপ্ত কর্ম -- সেদিকে মনোনিবেশ করা উচিত।
এই ঘটনায় ওদের কন্যার মনোজগত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আর তার চেয়েও বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সালমার অসামান্য প্রতিভা।
টাকায় বাঘের দুধ মিললেও মিলতে পারে। কিন্তু টাকায় প্রতিভা মেলে না।
______________________


লেখক ডা. অঞ্জলি । চিকিৎসক ঢাকা মেডিকেল কলেজ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।