|

পুরনো কালে কি মেয়েরাও সুরাপান করতেন ?


Published: 2017-01-09 11:31:09 BdST, Updated: 2017-07-28 12:33:17 BdST



ডা. সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায়
_________________________

ভারতের ( বৃহত্তর অর্থে ) সুরা সংস্কৃতি কিন্তু সুর সংস্কৃতির মতোই প্রাচীন । অথচ আমাদের ধ্রুপদী ওয়াইন - কালচারে ক্রমেই মরচে পরে গেল । মরুভুমির ধর্ম এবং কালচার এর প্রভাবে ঢাকা পড়লো নারী শিক্ষা , সুরা সংস্কৃতি ; টিম টিম করে বেঁচে থাকলো সুর সংস্কৃতি । অবশ্য মহানুভব বাদশাহ আকবরের সক্রিয় সৌজন্যে ও পৃষ্ঠপোষকতায় বরং সমৃদ্ধতর হলো সুর সংস্কৃতি । এক সমসাময়িক ঐতিহাসিকের মতে 'ইমানদার মুসলেম ছিলেন না হয়তো ' ; কিন্তু অপর এক সমসাময়িক ঐতিহাসিকের মতে মোসলেম ও অ-মোসলেম নির্বিশেষে , একটি হিন্দুস্তানি তমদ্দুন - ফরহাংগ বা সংস্কৃতির ভিত্তি কিন্তু তিনি -ই স্থাপন করেছিলেন এটি অস্বীকার করার জো -টি নেই ।
ধান ভানতে শিবের গীত ছেড়ে মূল বিষয়ে আসি ।

 


পুরনো ভারতে কি মেয়েরাও সুরাপান করতেন ? উত্তর হোলো , নিশ্চয়ই । ক্যমেরা প্যান করে একটি দৃশ্যে ফিরি । কৃষ্ণ ও অর্জুন একটি পার্টি দিচ্ছেন , নদী-র উপর । সেই পার্টি তে আমন্ত্রিত অনেক সুন্দরী , দ্রৌপদী ,সুভদ্রা এবং আরো অনেকে । মেয়েরা অনেকেই উৎকৃষ্ট আসব পান করে বেশ টলোমলো । এবং এই অনুষ্ঠানে এই সুকন্যাদের নৃত্যগীত । এখানে একটি কথা উল্লেখ না করে পারছিনে , যে তখন অতি প্রিয় খাদ্য ছিল গো -মাংসের সঙ্গে লাল সুরা । ভাবছেন কি পাগলের মতো লিখছি ! আজ্ঞে না । প্রাচীন ভারতে গো মাংসের চল ছিল বেশ ভালই। রন্তিদেব নাকি প্রতিদিন দু হাজার গো হত্যা করে সেই মাংস বিলি করে প্রসিদ্ধ হয়েছিলেন । আর রেড ওয়াইন খাওয়া হবে অথচ গো -মাংস থাকবেনা তা হয় না কি ! এই যথেচ্চাচারী গো -বধের ফলে একসময় পানীয় দুধে টান পড়ে এবং সম্ভবতঃ এই কারণেই গরু কে মাতার স্থান দিয়ে গো বধ নিষিদ্ধ করা হয় ।
সুরার প্রসঙ্গে এবার রামায়ণে ফিরি । এক্কেবারে বিশুদ্ধ বাল্মীকি রামায়ণ । এই পথ এত স্পর্শকাতর যেঁ অনেকেই চলতে সাহস করেন নি। করলেন নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ি মশায় , তাঁর অনন্য বৈদগ্ধের সাহসে । তাঁর লেখা থেকেই সরাসরি উদ্ধৃতি - ' রামচন্দ্রের পানীয়ের মধ্যে যে শুধু দুধ আর ঘোল -ই ছিল , এমন ধারণা যেন পাঠক - পাঠিকা মনেও না আনেন । একে রাজপুত্র বলে কথা , তাছাড়া অযোধ্যার পথে ঘাটে ছিল বারুণী মদ এবং ফুল মালা চন্দনের ম -ম গন্ধ । রাম কে ফিরিয়ে না আনতে পেরে ভরত দূঃখ করছেন , রাম হীন এবং উৎসব হীন মনোময় গন্ধ ছাড়া অযোধ্যায় আর থাকবই না ।

 

আরো আছে , সীতাদেবী , রাজা গুহকের রাজ্য ছেড়ে আসার সময় মানত করছেন , গঙ্গা এবং যমুনা নদী পার হওয়ার সময় -- যদি রাম ভালোয় ভালোয় অযোধ্যা ফিরে আসেন ; তা হলে তোমাদের প্রীতির জন্যে ব্রাহ্মণ দের প্রচুর খাওয়াব আর তোমাদের পূজো দেব মা , হাজার ঘট মদ্য আর পলান্ন দিয়ে - সুরা ঘট সহস্রেণ মাংসভূতৌদনেন চ ...সুরা ঘট শতেন চ ।
মৈরেয় , বেশ কড়া মদ্য ( সম্ভবতঃ পেরনো বলে একরকম ফরাসি মদ যা মৌ্রি থেকে তৈরী , এবং জল লাগলে কেমেস্ট্রির সিলভার নাইট্রেট এর মত দুধ বরণ রূপ ধারণ করে )( এটি কিন্তু সুনীলের লেখা থেকে আমার সংযোজন ) ...মদের ব্যাপারে সীতার বেশ দূর্বলতা যে ছিল , এটি কিন্তু পরিষ্কার করেছেন নৃসিংহপ্রসাদ , তাঁর সাহসকে কুর্ণিশ করতেই হয় ।

 

সীতার প্রিয় খাদ্য ছিল মাংসের সঙ্গে মদ ।রামের বিরহে সীতা মদ্য- মাংস ছেড়ে দিয়েছিলেন ।
অথচ ভারতে সুরা সংস্কৃতি প্রায় মরেই গেল । আর তার জায়গা নিল মণ্ড থেকে তৈরী হওয়া ইংরেজদের প্রবল অ্যালকোহল , রাম , হুইস্কি ,জিন আর ভদকার মত ।


কি ভালো না হোতো , ঘরে ঘরে আচার -কাসুন্দির মত যদি ফিরে আসতো আংলো -ইন্ডিয়ান দের মত বাড়ি বাড়ি তৈরী হওয়া আঙুর - আপেল - এমনকি খেজুর গুড়ের থেকে তৈরী ওয়াইন ! এই জমকালো ( প্রায় পারি - পারি আবহাওয়া ) শীতেই ফিরে এসো মধু মাধবী । প্রতীক্ষায় আমরা সুর(রা) রসিক ইতরজন । চিয়ার্স ! আ লা ভতর্ !

________________________________


** শ্রী রঞ্জন বন্দোপাধ্যায়ের কাছে কৃতজ্ঞ **<> কিন্তু মৌলিকতাই সিংহভাগ :
সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায় ।
_______________________
লেখক ডা. সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায় । কলকাতার প্রখ্যাত লোকসেবী চিকিৎসক। সুলেখক । কবি।

Studied MBBS (University of Calcutta) at Calcutta National Medical College

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।