|

ডা. মোহিত কামালের জন্য বাংলা একাডেমী পুরস্কার এখন সময়ের দাবি


Published: 2017-01-02 12:11:58 BdST, Updated: 2017-05-27 14:03:37 BdST

ডা. অঞ্জলি সাহা
_________________________


ডা. মোহিত কামাল৷বাংলাদেশের সাহিত্যের জনপ্রিয়তম লেখকের নাম। বাংলা একাডেমীর বইেমেলা মানেই মোহিত কামাল। একাই টেনে নেন পুরো বই মেলা। আজ এই কথাশিল্পীর জন্মদিন। ১৯৬০ সালে তিনি সন্দ্বীপে জন্মগ্রহন করেন।


জনপ্রিয় কথাশিল্পী হুমায়ুন আহমেদের মহাপ্রয়াণের পর বইমেলার বইবিক্রিতে ভাটা পড়ে। কিন্তু সেই ভাটায় জোয়ার আনেন মোহিত কামাল। প্রকাশকরা জানান, এখন সবচেয়ে বেশী বিক্রি হয়ে থাকে ডা. মোহিত কামালের বই। ঢাকার আর কোন লেখক বই বিক্রিতে তার ধারে কাছে নেই।

অনেকেই তাকে বাংলা সাহিত্যের কিংবদন্তি প্রতিভা ডা. নীহাররঞ্জন রায়ের সঙ্গে তুলনা করেন।
ভক্তদের মতে, বাংলা সাহিত্যে যেমন ডা. নীহাররঞ্জন রায় ; ঢাকার সাহিত্যের তেমন জনপ্রিয়তম লেখক ডা. মোহিত কামাল। দুজনেই পেশায় ডাক্তার।

সাহিত্য সমালোচক, বিশেষজ্ঞ , ভক্ত পাঠকসহ সকলের দাবি, বাংলাদেশের সাহিত্যের অবিস্মরণীয় ভূমিকা রাখার জন্য এবার তাকে বাংলা একাডেমী সাহিত্য পুরস্কার দেয়া হোক।
এটা সময়ের দাবি।
সংশ্লিষ্টরা আশা করেন, এবার বাংলা একাডেমী তাকে অবশ্যই এই পুরস্কার
প্রদান করে ভক্তদের দাবি পূর্ণ করবে।

পেশায় চিকিৎসক হয়েও তিনি দীর্ঘদিন ধরে লেখালেখির সঙ্গে সম্পৃক্ত৷ ডা. মোহিত কামাল একাধারে
মনোরোগ ও মাদকাসক্তি চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ , সাইকিয়াট্রিস্ট ও সাইকোথেরাপিস্ট ।


উপন্যাস-
গল্প, কিশোর উপন্যাস, স্বাস্থ্যকথা মিলিয়েঅআধাশতের বেশী বইয়ের লেখক তিনি।

তার প্রকাশিত বইয়ের মধ্যে রয়েছে--
চেনা বন্ধু অচেনা পথ

না
সুখ পাখি আগুন ডানা

মায়াবতী

মন
আগুন কয়লায় পোড়া জীবন

সন্দেহপ্রাচীর

উড়ালমন
চাঁদমুখ

অহনা
পৃথিবীতে কে কাহার
উড়াল বালক

কাছের তুমি দুরের তুমি

জোছনা রাতে বাড়িয়েছি হাত

হুমায়ুন আহমেদের সমুদ্র যাত্রায় অদ্ভুত এক মাছের কান্ড
.মানকমনের গতি-প্রকৃতি

মানব মনের উদ্বেগ ও বিষন্নতা

মনোসমস্যা মনোবিশ্লেষণ

শিশুর মনোজগৎ, শিশুর সুজনশীল বেড়ে ওঠা
.শিশুর বুদ্ধি ও স্মরণশক্তি কীভাবে ধারালো করা যাবে

.টিনেজ মন
.কিশোর কিশোরীর মনে ঝড়

ব্রেইন অ্যাটাক, অনিদ্রা ও মাথাব্যাথা


_______________________________
ডা. অঞ্জলি সাহা । ঢাকা মেডিকেল কলেজ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।