Ameen Qudir

Published:
2017-12-14 15:19:48 BdST

মাঈনুদ্দীন ও আশরাফুজ্জামানকে দেশে ফিরিয়ে শাস্তি বাস্তবায়নের দাবি বিএমএ-র


 

 

 

 

 

 

 


ডা. মোঃ মাহবুবুর রহমান বাবু

______________________________

 

১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর নেতৃত্বে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের পথ পরিক্রমায় ১৯৭১ সালে নয় মাসের সশস্ত্র মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাঙালি জাতি যখন স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে, ঠিক তখনই পাক হানাদার বাহিনী তাদের পরাজয় নিশ্চিত জেনে বিজয়ের ঠিক আগমূহুর্তে বাঙালি জাতিকে মেধাশুন্য করার উদ্দেশ্যে বুদ্ধিজীবী হত্যার পৈচাশিক উন্মাদনায় মেতে উঠে।


বাংলাদেশ মেডিক্যাল এসোসিয়েশন-বিএমএ যথাযোগ্য মর্যাদায় বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করেছে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ মেডিক্যাল এসোসিয়েশন (বিএমএ)
১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ বৃহস্পতিবার সূর্যোদয়ের প্রাক্কালে বিএমএ ভবনে কালো পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ, সকাল ০৭:০০ টায় কালোব্যাজ ধারণ করে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন ও বিকাল ০৩:০০টায় বিএমএ ভবনস্থ শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলন সভাকক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করে।

 


বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আলীম চৌধুরীর সহধর্মিণী শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী ও শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. ফজলে রাব্বী তনয়া নাসরিন সুলতানা। বাঙালির জীবনে দিবসটির তাৎপর্য ও বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন বিএমএ সাবেক মহাসচিব ডা. কাজী শহিদুল আলম, ডা. মোঃ শফিকুর রহমান ও ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ, বিএমএর যুগ্ম-মহাসচিব ডা. মোঃ কামরুল হাসান মিলন, বিএমএ‘র সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. মোঃ তারিক মেহেদি পারভেজ, বিএমএ কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য ডা. মোহাম্মদ মুশতাক হোসেন, শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আলীম চৌধুরী তনয়া ডা. নুজহাত চৌধুরী ও বিএমএর অন্যান্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

 


আলোচনা সভার সম্মানিত অতিথি ও আলোচকগণ শহীদদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে বলেন, পাক হানাদার বাহিনী বাঙালি জাতিকে মেধাশুন্য করার লক্ষ্যে সেদিন এদেশের বিভিন্ন পেশার মেধাবী সন্তানদেরকে হত্যা করেছিল যাতে বাংলাদেশ স্বাধীনতার পূর্ণ স্বাদ গ্রহন করতে না পারে। তাদের সেই ঘৃণ্য ও পৈচাশিক ষড়যন্ত্র বাংলাদেশের অগ্রগতিকে কিছুটা মন্থর করলেও স্তিমিত করতে পারে নাই। বাংলাদেশের আপমর জনসাধারণ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর নেতৃত্বে এদেশ স্বাধীন করেছিল, তারই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে গঠিত সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্মকে সাথে নিয়ে বাংলাদেশকে উন্নতির শিখরে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। সেদিন এদেশীয় যে সকল নরঘাতক আলবদর-রাজাকার এই বুদ্ধিজীবীদেরকে চিহ্নিত করে হত্যা করেছিল বর্তমান সরকার তাদেরকেও বিচার করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছে। আলোচকগণ প্রত্যাশা করেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকার শহীদ বুদ্ধিজীবী হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী চৌধুরী মাঈনুদ্দীন ও আশরাফুজ্জামান খানকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে এনে শহীদ বুদ্ধিজীবী হত্যাকান্ডের বিচারকার্য সম্পন্ন করবেন।

বিএমএ দপ্তর সম্পাদক ডা. মোহাঃ শেখ শহীদ উল্লাহ, প্রচার ও জনসংযোগ সম্পাদক ডা. মোঃ মাহবুবুর রহমান (বাবু) অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন। ”

 


বার্তা প্রেরক

_______________________________

ডা. মোঃ মাহবুবুর রহমান বাবু
প্রচার ও জনসংযোগ সম্পাদক
বাংলাদেশ মেডিক্যাল এসোসিয়েশন (বিএমএ)।


ক্যাম্পাস এর জনপ্রিয়