|

কে যে নাম রেখেছিল 'ধানসিঁড়ি'


Published: 2017-11-20 09:23:08 BdST, Updated: 2017-12-18 20:45:46 BdST

 

 

 


ডা. তারিক রেজা আলী
_________________________________


ধানসিঁড়ি নামটার প্রতি কি যে এক আকর্ষণ চন্দনার, সেই ছোট বেলা থেকে ধানসিঁড়ি নদী দেখতে যাবার ইচ্ছে তার। ঘরকুনো বলে সহসা কোথাও যাওয়ার সময়-সুযোগ হয় না। এবার যখন অফিস থেকে বলা হলো মফস্বলের কাজ কেমন চলছে দেখতে যেতে হবে, সে প্রথম সুযোগেই বরিশাল যাবার মনস্থির করলো। বাড়ীর সব পিছুটান ফেলে সত্যি চলে গেল বরিশাল একা একা! কাজ শেষ করে পরদিন এক কলিগের সাহায্য নিয়ে চলে গেল ঝালকাঠি। বারবার তাড়া দিতে লাগলো কলিগ কে, কখন যাওয়া যাবে প্রিয় কবির প্রিয় নদীর কাছে।

 

বরিশাল অঞ্চলের ভাষা নিয়ে অনেকেই অনেক মজা করে, সে শুধু চিন্তা করে যারা নদীর নাম রাখতে পারে ধানসিঁড়ি, তাদের সংস্কৃতি কত উন্নত ছিল ভাবা যায়? ধানসিঁড়ি শুনলেই কেমন বুকের মধ্যে হু হু করে ওঠে, শালিক ডেকে যায়, দেখা যায় শুভ্র বলাকার উড়ে যাওয়া। মাথার উপরে সাদা মেঘ ভেসে বেড়ায়। নদীর পারে কাঁঠাল গাছ খুঁজে ফেরে চন্দনার চোখ। মেলে না। হাঁটতে হাঁটতে চলে আসে কবি জীবনানন্দ দাশের পিতৃব্যের বাড়ীর কাছে। এখানে কবি কতবার এসেছেন। ভাবতে চেষ্টা করে, কবির চোখের সামনে যখন দেশটা দু'টুকরো হলো, ধানসিঁড়ি হলো যখন বিদেশের নদী, কেমন লাগতো তাঁর? কোলকাতার গলির বাড়ীতে বসে দু:খী কবি নিশ্চয়ই স্বপ্ন দেখতেন নদীর দু'পারে পায়ে চলা মেঠো পথের। কবির বিরহে অথবা কবির অভিশাপে একদা বিপুলা ধানসিঁড়ি এখন মৃতপ্রায়। তারপরেও আচ্ছন্নের মত নদীর পার ধরে নেমে আসে চন্দনা। এই সেই নদী, তার প্রেমিক কবির পরম প্রিয় নদী। এর পারে এসে বসে থাকতেন কবি জীবনানন্দ। হাত রাখতেন এ নদীর জলে। একদা প্রমত্তা নদীর বর্তমান শীর্ণকায়া জলে ছোট ডিঙি নৌকায় মাছ ধরছেন জেলেরা । বড় বড় নৌকা চলার প্রশ্নই আসে না। তাও বসে রইলো চন্দনা। নদীর জলে দেখা যায় নিজের ছায়া। তার পাশে ভেসে ওঠে কবির মুখ। কবি যেন বলছেন তাকে, এত দিন পরে এলে চন্দনা আমাকে দেখতে? কত বছর অপেক্ষায় আছি, তুমি আসবে বলে!
অস্ফুট স্বরে বলে চন্দনা, আমিই সেই মেয়ে কবি, যে নাম রেখেছিল 'ধানসিঁড়ি'!
"এর নাম ধানসিঁড়ি বুঝি?'
মাছরাঙাদের বললাম;
গভীর মেয়েটি এসে দিয়েছিলো নাম।
আজো আমি মেয়েটিকে খুঁজি;
জলের অপার সিঁড়ি বেয়ে
কোথায় যে চলে গেছে মেয়ে।"


_______________________________

ডা. তারিক রেজা আলী । সহকারী অধ্যাপক , রেটিনা। বিএসএমএমইউ।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।